বিদেশের মাটিতে দেশর জন্য গর্ব রেম্প ফ্যাশন মডেল পলাশ।

ফেস অব বাংলাদেশ এশিয়া মডেল ফেসটিভাল ২০১৯ দক্ষিন কোরিয়াতে অনুস্ঠিত এ অনুস্ঠান এ বিজয়ি ছেলে মডেল উইনার মেহেদি হাসান পলাশ । দেশের গন্ডি পেরিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় গিয়ে ‘এশিয়ার সেরা পুরুষ মডেল’ খেতাব জিতেছেন বাংলাদেশের ছেলে মেহেদি হাসান। তিনি দেশে মডেল পলাশ নামেই পরিচিত।

দক্ষিণ কোরিয়ায় এই প্রতিযোগিতায় যাওয়ার আগে পলাশ জিতেছিলেন ‘ফেস অব বাংলাদেশ ২০১৯’ প্রতিযোগিতায় রানার আপের পুরস্কার। বাংলাদেশ থেকে মডেল বাছাই করতে স্যান্ডালিনা ফেস অব বাংলাদেশ ২০১৯ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে ক্রসওয়াক কমিউনিকেশন এবং কোরীয় বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান কোরবান। তাদের সঙ্গে অংশীদার হিসেবে ছিল পারসোনা, প্রথম আলো ডটকম, ক্যানভাস, এবিসি রেডিও, হোটেল লা মেরিডিয়ান ও নাগরিক টেলিভিশন।
বাংলাদেশ এ বাছাই পর্বে ২০০ জন এর মাঝে ২৬ জন নির্বাচিত হয় । তাদের মাঝে বাছায় করে ৫ জন নির্বাচিত হয়। পলাশ জানান, এশিয়ার ২৭টি দেশ থেকে নির্বাচিত ৪ জন করে মডেল অংশ নেন। সব মিলে ১১০ জন প্রতিযোগী।
বাংলাদেশ থেকে আমরা ৫ জন নির্বাচিত হয়েছিলাম। তবে ভিসা সংক্রান্ত জটিলতায় মানসী কান্তা সরকার নামে একজন যেতে পারেননি। আব্বুকে যেদিন বলেছিলাম আমি মডেলিং করতে চাই, আব্বু রাজি ছিলেন না।

তিনি চাইতেন, আমি সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) হই। অনেক বোঝানোর পর একদিন বলেন, যাও, দেখো, কিন্তু আমি এই পেশায় কোনো সাহায্য করতে পারব না। আরেকটা শর্ত, তোমাকে অনার্সের পর এসআই পদে পরীক্ষা দিতে হবে। বাবার এই অনুমতি পেয়ে নিজেকে প্রমাণের চেষ্টায় লেগে পড়লাম। অবশেষে সফলতা পেয়েছেন পলাশ।
দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলে অনুষ্ঠিত এশিয়ান মডেল ফেস্টিভ্যালের জন্য নির্বাচিত হন পাঁচজন। চ্যাম্পিয়ন হন মারুফ রহমান ও শিরিন শিলা, রানারআপ হন মেহেদি হাসান পলাশ ও সাহেলা মজুমদার নিধি। আর বিশেষ বিবেচনায় পঞ্চম বিজয়ী হিসেবে মানসী কান্তা সরকারের নাম ঘোষণা করা হয়।
চুড়ান্ত পর্বে মঞ্চে ঘোষিত হয় এশিয়ার সেরা পুরুষ মডেল বাংলাদেশের মেহেদি হাসান পলাশ। এ ছাড়া আরও দুটি বিভাগে পুরস্কার দেওয়া হয়। সেরা নারী মডেল ও গ্র্যান্ড প্রাইজ নামে এই দুটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জেতেন চীন ও ইন্দোনেশিয়ার দুজন নারী মডেল।

Contact Us

We're not around right now. But you can send us an email and we'll get back to you, asap.

Not readable? Change text. captcha txt

Start typing and press Enter to search